العربية | বাংলা | English
দৈনিক আল ইহসান শরীফের ব্যানার (১৫ সেপ্টেম্বর, ২০০৯)

হাদীছ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, তোমরা চাঁদ দেখে রোযা রাখ, চাঁদ দেখে ঈদ কর। সউদী আরব রমাদ্বান মাসটি ত্রিশ দিনে পূর্ণ করলে তবে চাঁদ দেখে ঈদ পালন করার সম্ভাবনা রয়েছে। সউদী আরবে ঊনত্রিশ রমাদ্বান শরীফ-এ চাঁদ দেখার কোন সম্ভাবনা নেই।
যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইস্‌ সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুর্শিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেছেন, হাদীছ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, ‘তোমরা চাঁদ দেখে রোযা রাখ, চাঁদ দেখে ঈদ কর।’ সউদী আরব রমাদ্বান মাসটি ত্রিশ দিনে পূর্ণ করলে তবে চাঁদ দেখে ঈদ পালন করার সম্ভাবনা রয়েছে। সউদী আরবে ঊনত্রিশ রমাদ্বান শরীফ-এ চাঁদ দেখার কোন সম্ভাবনা নেই। সউদী আরব পবিত্র শাওয়াল মাস চাঁদ না দেখেই শুরু করতে পারে বলে সতর্ক করে তিনি এসব কথা বলেন।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেন, এ যাবত সউদী আরব চাঁদ দেখে মাস শুরু করার পক্ষে যথেষ্ট বক্তৃতা দিলেও বাস্তবে কাজ হয়নি কিছুই। চাঁদ দেখা বিষয়ক কমিটি প্রথমে সউদী জুডিশিয়াল কাউন্সিলের দায়িত্বে থাকলেও পরবর্তিতে তা চলে যায় সুপ্রিম কাউন্সিলের দায়িত্বে। চাঁদ দেখা কমিটির প্রাক্তন প্রধান শেখ লুহাইদানের পরিবর্তে আসে ডক্টর হাইমেদ। পরবর্তিতে তাকেও সরিয়ে নিয়োগ দেয়া হয় ডঃ ঈসাকে। কিন' খালি চোখে চাঁদ দেখে মাস শুরু করার কোন লক্ষণ এ যাবত দেখা যায়নি। যা চলছে তা হচ্ছে গোঁজামিল।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেন, এই শাওয়াল মাসের তারিখ ঘোষণা নিয়ে সউদী সরকারের হবে অগ্নি পরীক্ষা। কেননা ১৯শে সেপ্টেম্বর, শনিবার মক্কা শরীফ-এ চাঁদ মাত্র ৩ ডিগ্রি উচ্চতায় অবস্থান করবে এবং সূর্য অস্ত যাবার ১৭ মিনিটের মধ্যে চাঁদ অস্ত যাবে। তাই খালি চোখে এই চাঁদ দেখাতো যাবেই না এমনকি টেলিস্কোপ ব্যবহার করেও সম্ভব হবে না। সুতরাং চাঁদ দেখে মাস শুরু করতে চাইলে সউদী আরবকে রমাদ্বান শরীফ ত্রিশ দিনে পূর্ণ করে, ২০শে সেপ্টেম্বর, রবিবার চাঁদ দেখে ২১শে সেপ্টেম্বর, সোমবার পবিত্র ঈদুল ফিতর পালন করতে হবে।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী সতর্ক করে বলেন, যেহেতু সউদী আরব উম্মুল কুরার ক্যালেন্ডার অনুসরণ করে ফলে তাদের ১৯শে সেপ্টেম্বর, শনিবার চাঁদ না দেখেও চাঁদ দেখার ঘোষণা করতে পারে। এর কারণগুলো নিম্নরূপ:-
(১) অজুদ আল কামার অর্থাৎ চাঁদের অস্তিত্ব থাকবে; আকাশে যদিও চাঁদ দেখা যাবে না।
(২) যেহেতু সূর্য অস্ত যাবার পরে চাঁদ অস্ত যাবে।
(৩) অমাবস্যা সংঘটিত হবে ১৯শে সেপ্টেম্বরের সন্ধ্যার অনেক পূর্বে।

এসকল কারণের উপর ভিত্তি করে সউদী আরবে চাঁদ না দেখেই তারিখ ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন' কারণ যাই হোক ১৯শে সেপ্টেম্বর, শনিবার কোনভাবেই খালি চোখে চাঁদ দেখা যাবে না।

মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেন, সউদী সরকার ১৯শে সেপ্টেম্বর চাঁদ দেখার ঘোষণা করতে পারে তার আরও প্রমাণ হচ্ছে, সউদী আরবের একজন প্রফেসর ডক্টর আলি মুহাম্মদ আল সুকরি ইতোমধ্যেই এ বিষয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে। নিচের বর্ণনাই তার প্রমাণ।

সউদী আরব ২০শে সেপ্টেম্বর, রবিবার ঈদুল ফিতর পালন করার লক্ষ্যে এখনই প্রচারণা চালাচ্ছে। অথচ ১৯শে সেপ্টেম্বর, শনিবার, চাঁদ দেখার কোন সম্ভাবনা নেই।
যেখানে টেলিস্কোপেও চাঁদ দেখা যাবে না কিন্তু তিনি সেদিন চাঁদ দেখতে পাবার কিছুটা সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছেন।
মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেন, সউদী সরকারের কোনভাবেই উচিত হবে না, ১৯শে সেপ্টেম্বর, শনিবার চাঁদ দেখতে পাবার খবর প্রচার করার। সউদী সরকার যেহেতু চাঁদ দেখে মাস শুরু করার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে ফলে তাদের কথা এবং কাজের মধ্যে সমন্বয় থাকা উচিত। ধোঁকা দিয়ে মুসলমানদের ঈমান আমল নষ্ট করা উচিত হবে না।
মুজাদ্দিদে আ’যম, ইমাম রাজারবাগ শরীফ-এর মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা মুদ্দা জিল্লুহুল আলী বলেন, চাঁদের তারিখ হেরফের করে মুসলমানদের বার বার প্রতারিত করলে পৃথিবীর ২৫৫ কোটি মুসলমান ভাবতে বাধ্য হবেন, এই সউদী ওহাবী সরকার মূলত মুসলমান নয়; এরা ইহুদীর চর এবং তাদের বংশোদ্ভূত।

Rwamadwaan Shareef Content Mahe Ramadan Shareef
alt= রোজা অবস্থায় ইনজেকশন নেওয়া রোজা ভঙ্গের কারণ
রমাদ্বান শরীফ আর্টিকেল তারাবীহ্-এর নামাজ ২০ রাকাত ছলাতুত তারাবীহ